স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আজ বাংলাদেশ জাতীয় দলের ওয়ানডেতে স্থায়ী অধিনায়ক হিসেবে নতুন অধ্যায় শুরু হচ্ছে বাঁহাতি ওপেনার তামিম ইকবালের। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ৩ ম্যাচের সিরিজের প্রথম ম্যাচ মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম। অধিনায়কত্ব ছাড়া মাশরাফি বিন মর্তুজা এবার ওয়ানডে দলেও নেই। তামিমের অধীনে তাই বাংলাদেশ দলেরও নতুন যুগের শুরু। সাফল্য-ব্যর্থতার জন্য সমালোচনা বা প্রশংসা সবকিছু শুনতেই মানসিকভাবে প্রস্তুত তামিম। তবে এসব ছাপিয়ে তিনি নিজ দায়িত্বে অটল থেকে সামনে এগিয়ে যেতে মুখিয়ে আছেন। এই সিরিজের মাধ্যমে আইসিসির ওয়ানডে সুপার লীগ শুরু হবে বাংলাদেশ দলের। ২০২০ সালের ৩০ জুলাই থেকে ২০২৩ সালের ৩১ মার্চ পর্যন্ত চলবে এই সিরিজ। এ সময়ের মধ্যে চলা সব ওয়ানডেই হবে সুপার লীগের অংশ এবং শীর্ষ ৮ দল খেলবে সরাসরি ২০২৩ ওয়ানডে বিশ^কাপ। তাই সিরিজ জেতাকে অতীব গুরুত্বপূর্ণ মনে করছেন তামিম। শীর্ষ আটে থাকতে আপ্রাণ চেষ্টা যেমন চালাবে বাংলাদেশ তেমনি খেলার ধরনে উন্নতি ঘটানো প্রয়োজন বলে দাবি তামিমের। মঙ্গলবার ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি। জিম্বাবুইয়ের বিরুদ্ধে সর্বশেষ গত বছর মার্চে ওয়ানডে সিরিজ খেলেছে বাংলাদেশ দল। অধিনায়ক মাশরাফি সেই সিরিজের পরই নেতৃত্ব ছেড়েছেন। এবার তিনি দলেও নেই। ২০১৯ বিশ্বকাপের পরই তার ইনজুরির কারণে শ্রীলঙ্কা সফরে ৩ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে মাশরাফির উত্তরসূরি হিসেবে তামিমের একটি পরীক্ষা হয়ে গেছে। আবার সম্প্রতি তিনি বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ ওয়ানডে সিরিজ ও বঙ্গবন্ধু টি২০ কাপে অধিনায়কত্ব করেছেন। নিজের নেতৃত্ব নিয়ে তামিম বলেন, ‘আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অধিনায়কত্ব শুরুর আগে আমি দুইটা টুর্নামেন্টে ক্যাপ্টেন্সি করতে পেরেছি। দুটো টুর্নামেন্টই আমার জন্য কঠিন ছিল। কঠিন ছিল বলে অনেক কিছু শিখতে পেরেছি। আমি আমার সর্বোচ্চটা দেয়ার চেষ্টা করব। আপনি যখন অধিনায়কের দায়িত্বটি গ্রহণ করেছেন তখন এটার সঙ্গে অনেক কিছু আসবে। এখানে সমালোচনা, প্রতিক্রিয়া আসবে। আমার কাছে যেটা গুরুত্বপূর্ণ মনে হয় নিজের দায়িত্বে ঠিক থাকা। আমি আগামীকাল (আজ) থেকে সামনে এগিয়ে যেতে মুখিয়ে আছি। আমি সমালোচনা বা প্রশংসা সবকিছুর জন্য প্রস্তুত।’ ২০২৩ বিশ্বকাপ সরাসরি খেলার জন্য আয়োজক ভারতসহ অন্তত র‌্যাঙ্কিংয়ে আটে থাকতে হবে। সেদিকে লক্ষ্য আছে তামিমের। তিনি বলেন, ‘স্বাভাবিকভাবেই তো সবসময়ই জেতার চাপ অবশ্যই থাকে। এখন থেকে ২০২৩ বিশ্বকাপ পর্যন্ত আমরা খুব বেশি হলে ২৭-২৮টা ওয়ানডে খেলব। আমাদের জন্য পয়েন্ট সিস্টেমের জন্য প্রত্যেকটা ম্যাচ জেতাটা এখন খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমরা অবশ্যই চাইব যাতে আমাদের কোয়ালিফাইং না খেলা লাগে। আমরা যাতে শীর্ষ আটে থাকতে পারি। সিরিজ জেতা অবশ্যই জরুরী। আমরা আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রায় এক বছর পরে ফিরছি। তো প্রথম শুরুটা প্রথম ৫ ওভার বোলিং করি বা ব্যাটিং, ভাল শুরুটা জরুরী।’ সুপার লীগের জন্য বিশ্বের সব দলই চাপে থাকবে বলে মনে করেন তামিম। এই সময়ের মধ্যে তাই নিজের খেলার ধরনটা ঠিক রেখে তা উন্নত করতে মনোযোগী হতে হবে বলে দাবি ওয়ানডে অধিনায়কের। তিনি বলেন, ‘যেটা আমি সবসময় গুরুত্ব দেই যে আমাদের বাংলাদেশী ব্র্যান্ড অব ক্রিকেট উন্নত করতে হবে। আমরা অন্যদের অনুসরণ না করে নিজেরা যেটা খেলি ওটাতেই মনোযোগী হতে চাই।’