বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ভারতীয় অভিনেত্রী মালভি মালহোত্রাকে ছুরিকাঘাত করেছেন তাঁরই এক বন্ধু। গত সোমবার রাতে ভরসোভা এলাকার একটি ক্যাফে থেকে বের হয়ে বাড়ি ফেরার পথে এই হামলার শিকার হন তিনি। অভিনেত্রীকে তলপেট ও হাতে পরপর ছুরির আঘাতে ক্ষতবিক্ষত করে দেওয়া হয়। বর্তমানে তিনি মুম্বাইয়ের কোকিলাবেন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ভারতের একাধিক গণমাধ্যম জানিয়েছে, কুমার মহীপাল নামের ওই হামলাকারী অভিনেত্রীর পূর্বপরিচিত।

ইতিমধ্যেই তাঁর বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টার অভিযোগে ভারসোভা থানায় মামলা রুজু হয়েছে। জানা যায়, ২০১৯ সালে ফেসবুকে কুমার মহীপালের সঙ্গে মালভির পরিচয় হয়েছিল। নিজেকে প্রযোজক হিসেবে পরিচয় দিয়েছিল ওই যুবক। বেশ কয়েকবার দুজনের সাক্ষাৎও হয়েছিল। কিছুদিন পরই বিয়ের প্রস্তাব দেয় কুমার মহীপাল। তাতে রাজি হননি মালভি। সম্প্রতি দুবাইয় যান মালভি। দুবাই থেকে ফেরার পর মুম্বাইয়ের ভরসোভা এলাকার ওই ক্যাফেতে হাজির হন তিনি। সোমবার রাত ৯টা নাগাদ ক্যাফে থেকে বের হতেই মালভির সামনে একটি বিলাসবহুল গাড়িতে করে তাঁর সামনে এসে দাঁড়ান মহীপাল। প্রকাশ্য রাস্তায় মালভিকে বিয়ের প্রস্তাব দিলে মহীপালের সঙ্গে কথা বলতে অস্বীকার করেন অভিনেত্রী। এর পরই মালভির ওপর ছুরি নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েন মহীপাল। আচমকা পকেট থেকে ছুরি বের করে প্রথমে মালভির পেটে আঘাত করেন। তারপর এলোপাতাড়িভাবে ছুরি চালাতে থাকেন। মালভির ডান হাতের কবজি ও বা হাতের আঙুলে আঘাত লাগে। অভিনেত্রী মাটিতে লুটিয়ে পড়তেই সেখান থেকে পালিয়ে যায় কুমার মহীপাল। অভিনেত্রীর দাবি, মহীপাল সিংয়ের সঙ্গে তাঁর বন্ধুত্ব গড়ে উঠলেও তিনি কিছুতেই ওই ব্যক্তিকে বিয়ে করতে রাজি হননি।